রেজি: কেএন ৭৫52 তম বর্ষ বাংলা September 29, 2022 ইং

করোনা পরিস্থিতি


Warning: array_filter() expects parameter 1 to be array, string given in /www/wwwroot/dainikjanmobhumi.com/wp-content/plugins/corona/corona.php on line 322
বাংলাদেশবিশ্বকরোনা মানচিত্রদেশে-দেশে

বাংলাদেশ

Confirmed
0
Deaths
0
Recovered
0
Active
0
Last updated: September 29, 2022 - 7:05 am (+06:00)

বিশ্ব

Confirmed
0
Deaths
0
Recovered
0
Active
0
Last updated: September 29, 2022 - 7:05 am (+06:00)
Last updated: September 29, 2022 - 7:05 am (+06:00)
1-9 10-99 100-999 1,000-9,999 10,000+

Global

  • Confirmed
    Deaths
    Recovered

    • Warning: Invalid argument supplied for foreach() in /www/wwwroot/dainikjanmobhumi.com/wp-content/plugins/corona/templates/corona-list.php on line 26
    Total
    0
    0
    0
    Last updated: September 29, 2022 - 7:05 am (+06:00)

    খুলনা প্রশাসনিক কনভেনশন সেন্টার যে কোন সময় বাড়ি ধসে কেড়ে নিতে পারে প্রাণ

    সম্পাদক


    জন্মভূমি রিপোর্ট
    জিকে শামীমের গড়ে ওঠা জিকেবিপিএল ও ন্যাশনাল ডেভেলপম্যান্ট ইঞ্জিনিয়ারস্ লি: কর্তৃক খুলনা প্রশাসনিক কনভেনশন সেন্টার নির্মাণ কাজে অবহেলায় ক্ষতিগ্রস্ত আশপাশের ভবন। অধিকাংশ ভবনের ক্ষতি হলেও কোম্পানীর নেই কোন প্রতিকারের চেষ্টা। বরং জিকে শামীম এর প্রতিষ্ঠানের বিপক্ষে মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছে না ভুক্তভোগীরা। একাধিক সরকারি প্রতিষ্ঠানে অভিযোগ করলেও মিলছে না কোন প্রতিকার। সরকারি ভবন নির্মাণের দোহাই দেখিয়ে পার পেতে চায় তারা। ফলশ্রুতিতে নিরুপায় হয়ে অনেকে ৪৫ বছর বসবাসরত বাড়ি ছেড়ে আজ পথহারা। নিজ উদ্যোগে কেউ কেউ মেরামত করতে পারলেও অধিকাংশ বাড়ির মালিক পড়েছে বিপাকে। খুলনা প্রেস ক্লাবে এমন অভিযোগ করলেন খুলনা প্রশাসনিক কনভেনশন সেন্টার নির্মাণের আশপাশের ভবন মালিকরা।
    শনিবার বেলা সাড়ে ১১টায় খুলনা প্রেস ক্লাবের সাংবাদিক হুমায়ূন কবীর বালু মিলনায়তনে খুলনা প্রশাসনিক কনভেনশন সেন্টার নির্মাণ কাজে ঠিকাদার কোম্পানির অবহেলায় ক্ষতিগ্রস্ত উত্তর পাশের আবাসিক ভবনের পরিবারের পক্ষে থেকে সংবাদ সম্মেলন ভনুষ্ঠিত হয়েছে। লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মির্জাপুর রোডস্থ মালিকদের পক্ষে মাহনাজ পারভীন। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, যে কোন বহুতল ভবন নির্মাণের ক্ষেত্রে আশেপাশের ভবন যেন কোনরূপ ক্ষতির সম্মুখীন না হয় সে বিষয়ে ঠিকাদারের প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা উচিত। প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণের পরও যদি আশেপাশের ভবনে ক্ষতি হয় তবে তার ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থাও ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানেরই নেয়া উচিত। তিনি আরও বলেন ক্ষতিপূরণ দেয়ার ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য কয়েকবারই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে পত্র দেয়া হয়েছে কিন্তু অদ্যবধি এ বিষয়ে কোন ক্ষতিপূরণ পাওয়া যায়নি। এ বিষয়ে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের স্থানীয় প্রতিনিধি ও সরকার কর্তৃক নিয়োগকৃত প্রকল্প পরিচালকের সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা ক্ষতিপূরণ না দেয়ার জন্য বিভিন্ন ধরণের অজুহাত দেখায় যা বাস্তবসম্মত নয়। সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন-আব্দুল হাই, এজাজ আহমেদ, সিরাজউদ্দিন, তারিকুল ইসলাম, মো: আরিফুর রহমান, সিরাজুল ইসলাম, আসাদুজ্জামান প্রমুখ।

    Leave a Reply